ফেসবুকে ‘ধর্মানুভূতিতে আঘাত’, রাজশাহী কলেজের ছাত্রীকে ক্যাম্পাসে সাময়িক নিষিদ্ধ

আওয়াজবিডি ডেস্ক
২৮ জুন ২০২২, বিকাল ৭:১৫ সময়

“ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে” সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে মন্তব্য করার অভিযোগে রাজশাহী কলেজের এক ছাত্রীকে ক্যাম্পাসে সাময়িক নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) দুপুরে কলেজের একাডেমিক কাউন্সিলের জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একইসঙ্গে কলেজের শৃঙ্খলার স্বার্থে স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসনকে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানানো হবে বলেও সভায় সিদ্ধান্ত হয়।

অভিযুক্ত ছাত্রী কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী।

এর আগে, এদিন সকালে ওই ছাত্রীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে কর্তৃপক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন কলেজ শিক্ষার্থীদের একটি অংশ। তার মন্তব্য নিয়ে পুরো কলেজ ক্যাম্পাসজুড়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে দফায় দফায় শিক্ষক কাউন্সিলের মিটিং শেষে এই সিদ্ধান্ত নেয় কলেজ কর্তৃপক্ষ।

রাজশাহী কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের একাধিক শিক্ষার্থীর ভাষ্য, ওই শিক্ষার্থী একটি ফেসবুক গ্রুপে মুসলমানদের কাবা ও হজ নিয়ে অশালীন, অবমাননাকর মন্তব্য করে। সে কারণে তাকে কলেজ থেকে বহিষ্কারসহ কঠোর শাস্তির দাবি উঠেছে।

উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাফিসা তাবাসসুমের বক্তব্য, “মেয়েটা হিজাব পরে থাকে। সে মুসলমান। এরপরও এমন অবমাননাকর মন্তব্য কখনোই আশা করা যায় না। সে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আল্লাহ, রাসূল ও হজ নিয়ে অশালীন মন্তব্য করেছে। আমরা এর তিব্র প্রতিবাদ জানাই।”

এ বিষয়ে রাজশাহী কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আব্দুল খালেক জানান, “বিষয়টি খুব স্পর্শকাতর। এ নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। সার্বিক বিষয় বিবেচনায় শিক্ষক কাউন্সিলের জরুরি সভায় কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কলেজ কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা নিতে পারে না। এটা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দেখবে। তবে কলেজে বিশৃঙ্খলা এড়াতে ওই ছাত্রীকে ক্যাম্পাসে সাময়িক নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ বিষয়ে একাডেমিক ব্যবস্থা নিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়কে জানানো হয়েছে।”

এ বিষয়ে পুলিশের কাছে কোনো তথ্য নেই বলে দাবি করেন বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজারুল ইসলাম।

ইব্রাহিম/আওয়াজবিডি/ইউএস

ওয়াশিংটন পোস্টের খবর

ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে রাশিয়ার ৭০-৮০ হাজার সেনা হতাহত: দাবি পেন্টাগনের

অনলাইন ডেস্ক
১০ আগস্ট ২০২২, রাত ১:৪৩ সময়

এর মধ্যে মাস ছয়েকের এই যুদ্ধে রাশিয়ার ৭০ থেকে ৮০ হাজার সেনা হতাহত হয়েছে বলে দাবি করেছে পেন্টাগন। অন্যদিকে, ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর দাবি, এ পর্যন্ত তাদের ৪২ হাজার ২০০ সেনার মৃত্যু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সদর দফতর পেন্টাগনের শীর্ষ কর্মকর্তা কলিন কাল গতকাল সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করেন।

তিনি বলেন, ইউক্রেন যুদ্ধে রুশ সেনাবাহিনীর হতাহতের সংখ্যা আসলে কত, তা নিয়ে ধোঁয়াশা থাকলেও অন্তত ৭০-৮০ হাজার সেনা হতাহত হয়েছেন। তার দাবি, হতাহতের সঠিক সংখ্যা কমবেশি হতে পারে। তবে অন্তত এই সংখ্যক সেনাকে হারিয়েছে রাশিয়া।

পেন্টাগনের ওই কর্তার দাবি, সেনাবাহিনীর পাশাপাশি চার কোটিরও বেশি ইউক্রেনীয় নাগরিকের বিরুদ্ধেও লড়তে হচ্ছে রাশিয়াকে। অন্যদিকে, আমেরিকাসহ বহু দেশের কাছ থেকে সামরিক সাহায্য পাচ্ছে ইউক্রেন। 

সূত্র : ওয়াশিংটন পোস্ট