বাদীকে বিয়ে করে ধর্ষণ মামলায় জামিন, ১৩ বছর সংসারের পর সাজাপ্রাপ্ত হয়ে গ্রেফতার

আওয়াজবিডি ডেস্ক
৩০ জুন ২০২২, রাত ৮:২২ সময়
ধর্ষণ মামলায় সাজাপ্রাপ্ত দুলু প্রামাণিক —ছবি: সংগৃহীত

এরপর ১৩ বছর ধরে চলছিল তাদের সংসার। হঠাৎ গতকাল বুধবার তাকে সেই মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে বগুড়ার ধুনটে।

পুলিশ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলা প্রত্যাহারের বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় বিচারকাজ শেষে রায় ঘোষণা করেছেন আদালত। ধর্ষণের অভিযোগে দুলু প্রামাণিক (৩৫) নামের ওই ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দেন বগুড়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক নুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার কবির। জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে না পারলে আরও এক বছর সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়। আদালতের বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আশেকুর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত না থাকায় দুলুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। পুলিশ সেই গ্রেফতারি পরোয়ানার ভিত্তিতে গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে তাকে গ্রেফতার করে। পরে তাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতার দুলু প্রামাণিক উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের আনারপুর দহপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০০৯ সালে ৩০ সেপ্টেম্বর রাত ১১টার দিকে স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হওয়া এক নারীর ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করেন দুলু প্রামাণিক। এ সময় ওই নারীর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন আসার আগেই দুলু প্রামাণিক পালিয়ে যায়। ঘটনার পরের দিন ওই নারী বাদী হয়ে দুলু প্রামাণিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে ধুনট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। এর চার দিন পর পুলিশ দুলু প্রামাণিককে গ্রেফতার করে। পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) বুলবুল হোসেন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

নয় মাস কারাভোগের পর ধর্ষণের শিকার ওই নারীকে আদালতের মাধ্যমে বিয়ে করে দুলু প্রামাণিক। পরে তাকে আদালত থেকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়। জামিনের পর থেকে তারা দুজন নিজ বাড়িতে সংসার শুরু করেন।

বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালত–২ এর বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আশেকুর রহমান বলেন, বিয়ের পরে মামলার আসামি আদালত থেকে জামিন পেয়ে পলাতক ছিলেন। আদালতে তার কোনো আইনজীবী ছিল না। আর এর মধ্যে মামলার বাদী আসামির বিরুদ্ধে আদালতে এসে বিচারকের কাছে সময়মতো সাক্ষী দিয়েছেন। এ কারণে আদালত আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন।

গ্রেফতারের পর থানা–হাজতে আসামি দুলু প্রামাণিক বলেন, তার স্ত্রীর আদালতে সাক্ষী দেওয়ার বিষয়ে তিনি জানতেন না। মামলায় তার কিছু হবে না বলে স্ত্রীর আশ্বাসের ওপর বিশ্বাস করে আইনি মোকাবিলা করেননি তিনি। এখন তিনি রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।

ইব্রাহিম/আওয়াজবিডি/ইউএস

ওয়াশিংটন পোস্টের খবর

ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে রাশিয়ার ৭০-৮০ হাজার সেনা হতাহত: দাবি পেন্টাগনের

অনলাইন ডেস্ক
১০ আগস্ট ২০২২, রাত ১:৪৩ সময়

এর মধ্যে মাস ছয়েকের এই যুদ্ধে রাশিয়ার ৭০ থেকে ৮০ হাজার সেনা হতাহত হয়েছে বলে দাবি করেছে পেন্টাগন। অন্যদিকে, ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর দাবি, এ পর্যন্ত তাদের ৪২ হাজার ২০০ সেনার মৃত্যু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সদর দফতর পেন্টাগনের শীর্ষ কর্মকর্তা কলিন কাল গতকাল সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করেন।

তিনি বলেন, ইউক্রেন যুদ্ধে রুশ সেনাবাহিনীর হতাহতের সংখ্যা আসলে কত, তা নিয়ে ধোঁয়াশা থাকলেও অন্তত ৭০-৮০ হাজার সেনা হতাহত হয়েছেন। তার দাবি, হতাহতের সঠিক সংখ্যা কমবেশি হতে পারে। তবে অন্তত এই সংখ্যক সেনাকে হারিয়েছে রাশিয়া।

পেন্টাগনের ওই কর্তার দাবি, সেনাবাহিনীর পাশাপাশি চার কোটিরও বেশি ইউক্রেনীয় নাগরিকের বিরুদ্ধেও লড়তে হচ্ছে রাশিয়াকে। অন্যদিকে, আমেরিকাসহ বহু দেশের কাছ থেকে সামরিক সাহায্য পাচ্ছে ইউক্রেন। 

সূত্র : ওয়াশিংটন পোস্ট