যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের শরীরে ৬০টি গুলি পুলিশের, উত্তাল ওহাইও

অনলাইন ডেস্ক
৩ জুলাই ২০২২, দুপুর ১:৪৬ সময়

উল্টে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন। সেই ‘অপরাধে’ ৬০টিরও বেশি গুলিতে জেল্যাল্ড ওয়াকারকে ঝাঁঝরা করে দিয়েছিল পুলিশ। তাদের অবশ্য দাবি, গুলি চালিয়েছিলেন ওয়াকারও।

যুক্তরাষ্ট্রের পুলিশের বিরুদ্ধে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার অভিযোগ নতুন নয়। সেসব অভিযোগের সঙ্গে আরও একটি নাম যুক্ত হলো। ওহাইও অঙ্গরাজ্যের অ্যাক্রনে গত সোমবার এই ঘটনা ঘটে। এরপরই এই ঘটনার বিচার দাবিতে বিক্ষোভ করছেন সাধারণ মার্কিনিরা। খবর এএফপির

এই বিক্ষোভ ধীরে ধীরে বড় হচ্ছে। অ্যাক্রনে আরও বড় সমাবেশের ডাক দেয়া হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে শহরবাসীকে শান্ত থাকার আর্জি জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার ও মেয়র।

এই ঘটনার পর পুলিশ দাবি করেছে, রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ ট্রাফিক সিগন্যাল ভেঙে একটি গাড়ি অত্যন্ত দ্রুত গতিতে যাচ্ছিল। পুলিশ সেটির পিছু নেয়। চালককে গাড়ি থেকে নামতে বলে তারা। কিন্তু গাড়ির ভেতর থেকেই গুলি ছোড়েন চালক। তারপর গাড়ি থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করেন।

পুলিশের বিবৃতি অনুয়ায়ী, ‘পালানোর সময়ে তাকে দেখে মনে হচ্ছিল, ফের গুলি চালাতে পারে। তাই আমরা গুলি চালাতে বাধ্য হই।’

ঘটনাস্থলেই মারা যান ২৫ বছর বয়সি জেল্যান্ড ওয়াকার। তার প্রতিবেশী ও আত্মীয়রা জানিয়েছেন, ডেলিভারি বয়ের কাজ করতে জেল্যান্ড। তিনি শান্ত ও ভদ্র স্বভাবের ছিলেন।

কৃষ্ণাঙ্গ যুবকটি যে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছিল বা পরেও গুলি চালানোর চেষ্টা করেছিল তার কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি পুলিশ। এর কোনো প্রত্যক্ষদর্শীও মেলেনি। এছাড়া তার সঙ্গে কোনো আগ্নেয়াস্ত্র ছিল কি না সে বিষয়েও নীরব পুলিশ। এসব প্রশ্নের উত্তর না মেলায় পুলিশের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ এনেছে জেলান্ডের পরিবার।

জেল্যান্ড পরিবারের আইনজীবী ববি ডি সেলো দাবি করেছেন, পুলিশ সেদিন প্রায় ৯০ রাউন্ড গুলি চালিয়েছিল। যার মধ্যে অন্তত ৬০টি জেল্যান্ডের শরীর ফুঁড়ে গিয়েছে। অসংখ্য গুলিতে যুবকটির মুখমণ্ডলও ঝাঁঝরা হয়ে গিয়েছিল বলে জানিয়েছেন ওই আইনজীবী।

এই ঘটনার পরে ওহাইওর বিভিন্ন শহরে বেশ কয়েকটি বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। স্থানীয় সময় রোববার অ্যাক্রনে একটি বড় বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। হামলার আশঙ্কায় শহরের পুলিশ সদর দফতরের সামনে বাড়তি কাঁটাতার ও ব্যারিকেড লাগানো হয়েছে।

শহরবাসীকে শান্ত থাকার আর্জি জানিয়ে পুলিশ কমিশনার স্টিভ মাইলেট বলেছেন, ‘ঠিক কী ঘটেছিল, তা খতিয়ে দেখছি। আপনাদের কাছে অনুরোধ, আইন নিজেদের হাতে তুলে নেবেন না।’ একই বার্তা দিয়েছেন মেয়র ড্যান হরিগ্যান।

ওয়াশিংটন পোস্টের খবর

ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে রাশিয়ার ৭০-৮০ হাজার সেনা হতাহত: দাবি পেন্টাগনের

অনলাইন ডেস্ক
১০ আগস্ট ২০২২, রাত ১:৪৩ সময়

এর মধ্যে মাস ছয়েকের এই যুদ্ধে রাশিয়ার ৭০ থেকে ৮০ হাজার সেনা হতাহত হয়েছে বলে দাবি করেছে পেন্টাগন। অন্যদিকে, ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর দাবি, এ পর্যন্ত তাদের ৪২ হাজার ২০০ সেনার মৃত্যু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সদর দফতর পেন্টাগনের শীর্ষ কর্মকর্তা কলিন কাল গতকাল সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করেন।

তিনি বলেন, ইউক্রেন যুদ্ধে রুশ সেনাবাহিনীর হতাহতের সংখ্যা আসলে কত, তা নিয়ে ধোঁয়াশা থাকলেও অন্তত ৭০-৮০ হাজার সেনা হতাহত হয়েছেন। তার দাবি, হতাহতের সঠিক সংখ্যা কমবেশি হতে পারে। তবে অন্তত এই সংখ্যক সেনাকে হারিয়েছে রাশিয়া।

পেন্টাগনের ওই কর্তার দাবি, সেনাবাহিনীর পাশাপাশি চার কোটিরও বেশি ইউক্রেনীয় নাগরিকের বিরুদ্ধেও লড়তে হচ্ছে রাশিয়াকে। অন্যদিকে, আমেরিকাসহ বহু দেশের কাছ থেকে সামরিক সাহায্য পাচ্ছে ইউক্রেন। 

সূত্র : ওয়াশিংটন পোস্ট