খুলনায় ইয়াবাসহ পুলিশ সদস্য গ্রেফতার

আওয়াজবিডি ডেস্ক
২১ সেপ্টেম্বর ২০২২, বিকাল ৭:৫৯ সময়

ইয়াবা ও গুলি-সদৃশ বস্তুসহ খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের এক সদস্যসহ দু’জনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। তাদের দু’জনের বিরুদ্ধে লবনচরা থানায় পৃথক মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তাদের দু’জনকে কৃষ্ণনগর এলাকা থেকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৬-এর একটি অভিযানিক দল।

র‍্যাবের হাতে ইয়াবাসহ গ্রেফতার হওয়া পুলিশ সদস্য মো. মেহেদী হাসান লবনচরা থানার অফিসার ইনচার্জের (ওসি) দেহরক্ষী। অন্যজন হলেন মো. হুমায়ুন কবির। তিনি নগরীর কৃষ্ণনগর এলাকার বাসিন্দা।

লবনচরা থানার ওসি, তদন্ত মো. আমিরুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে র‌্যাব-৬ কৃষ্ণনগর এলাকায় হুমায়ুন কবিরের বাসায় অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ সদস্য মেহেদী হুমায়ুন কবিরের বাসায় অবস্থান করছিলেন। র‌্যাব পুলিশ সদস্য মেহেদীর কাছ থেকে ৫০টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে। আর হুমায়ুন কবিরের কাছ থেকে ১০০টি ইয়াবা ও একটি গুলি-সদৃশ বস্তু উদ্ধার করা হয়।

গুলি-সদৃশ বস্তু ও মাদকসহ মেহেদী ও হুমায়ুন কবিরকে র‌্যাব কার্যালয়ে নেওয়া হয়। রাতে তাদের লবনচরা থানায় হস্তান্তর করা হয়। এ ঘটনায় র‌্যাবের উপপরিদর্শক (এসআই) বজলুর রশীদ বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই হাবিবুর রহমান বলেন, “বিকেল তাদের আটক করে র‌্যাব। রাতে থানায় হস্তান্তর করা হয়। হুমাযুন কবিরের কাছ থেকে গুলি-সদৃশ বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে। সেটি পরীক্ষার জন্য সিআইডি ল্যাবে পাঠানো হবে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বুধবার দুপুরের পর তাদের দু’জনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।”

ইব্রাহিম/আওয়াজবিডি/ইউএস

নয়াপল্টনে বিএনপির ৫০ নেতাকর্মীর জমায়েত, পুলিশের ধাওয়া, আটক ১

আওয়াজবিডি ডেস্ক
৮ ডিসেম্বর ২০২২, রাত ৯:৫০ সময়

এসময় পুলিশ ধাওয়া করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে এবং একজনকে আটক করে প্রিজনভ্যানে তুলতে দেখা গেছে।

আটক ব্যক্তির নাম মোস্তফা জামান মিন্টু বলে জানা গেছে। তিনি যশোরের শার্শা উপজেলার বিএনপি কর্মী।

বৃহস্পতিবার রাতে সরেজমিনে দেখা যায়, নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অন্তত ৫০ জন নেতা-কর্মী জড়ো হয়েছেন। যাদের বেশিরভাগ বগুড়া থেকে এসেছেন। কিন্তু, কিছু সময় পরে পুলিশ ধাওয়া করলে তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

পুলিশের ধাওয়ার আগে সেখানে উপস্থিত বগুড়া জেলা মহিলা দলের সহসভাপতি জেবুননাহার জেবা বলেন, ঢাকাতে আসা নেতাকর্মীরা আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে উঠেছেন। তারা ট্রেনে ও বাসে করে বগুড়া থেকে ঢাকায় এসেছেন। বগুড়া থেকে কয়েক হাজার নেতা-কর্মী ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশে যোগ দিবেন।

সেখানে উপস্থিত নেতাকর্মীরা বলেন, 'আমরা ভীত নই। যদি আটক করে আটক হব। গুলি করলে মরব, আমরা উভয়ের জন্য প্রস্তুত।

পুলিশ জানিয়েছে, এখানে বর্তমানে জড়ো হওয়া নিষেধ। তাই তাদের ছত্রভঙ্গ করা হয়েছে।

ইব্রাহিম/আওয়াজবিডি/ইউএস