বান্দরবানে হোটেলে কাজ নিয়েছিলেন রহিমা বেগম

অনলাইন ডেস্ক
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, দুপুর ১০:৫৭ সময়
ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার একটি বাড়ি থেকে রহিমা বেগমকে উদ্ধার করে পুলিশ —ছবি সংগৃহীত

তিনি বান্দরবান গিয়ে হোটেলে কাজ নিয়েছিলেন। তার সব বক্তব্য যথাযথভাবে যাচাই-বাছাই শেষে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করবে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

এদিকে রহিমা বেগম, তার মেয়ে মরিয়ম মান্নান, আদুরী আক্তারসহ পরিবারের সবাইকে গ্রেফতার করে বিচারের দাবি জানানো হয়েছে। রহিমার ‘নিখোঁজ হওয়ার’ ঘটনায় করা মামলায় আর্থিক-সামাজিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো গতকাল খুলনায় সংবাদ সম্মেলন করে এই দাবি জানিয়েছে।

তদন্তসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রহিমা পুলিশকে যে কথা বলেছিলেন, আদালতে তা বলেননি। তিনি আদালতে বলেন, অপহরণকারীরা তাকে ধরে নিয়ে গিয়ে বান্দরবানে ছেড়ে দেয়। সেখানে থেকে ট্রেনে করে ঢাকায় আসেন, পরে বোয়ালমারীর সৈয়দপুরে পৌঁছান।

তদন্তসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা আরও বলছেন, বান্দরবান থেকে ঢাকা আসার কোনো রেললাইন নেই। এই তথ্যটি একেবারে ভুয়া। বারবার তিনি অপহরণের দাবি করছেন। অপহৃত হলে তার কাছে ব্যাগ ও নিত্যব্যবহার্য জিনিসপত্র কিভাবে ছিল? উদ্ধারের সময় তার কাছে এসব সামগ্রী পাওয়া যায়।

তদন্তসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, রহিমা বান্দরবানে গিয়েছিলেন। সেখানে হোটেলে কাজ নিয়েছিলেন। সেখানে লোকজনকে বলেছিলেন, তার এক ছেলে ঢাকায় পড়াশোনা করে, টাকার প্রয়োজন। লোকজন তাকে পাশের আরেকটি কাজ ঠিক করে দেওয়ার চেষ্টা করে। সেখানে তার কাজটি ঠিক হয়েও গিয়েছিল, তবে তার কাছে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) চায়। যা সংগ্রহ করার জন্যই তিনি ফরিদপুরে বোয়ালমারীর সৈয়দপুর গ্রামে যান।

পিবিআই খুলনার পুলিশ সুপার (এসপি) সৈয়দ মুশফিকুর রহমান কালের কণ্ঠকে জানান, তারা রহিমা বেগমের দেওয়া দুটি বক্তব্যই যাচাই করে দেখছেন। তাঁদের কাছে দেওয়া বক্তব্য এবং আদালতে দেওয়া বক্তব্যে যেমন গরমিল আছে, তেমনি আদালতে দেওয়া বক্তব্যে অসত্য তথ্য আছে।

রহিমা ও তার পরিবারের বিচার দাবি

গতকাল খুলনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর পক্ষে মালিহা মহিউদ্দিন মাহি বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, রহিমা বেগমের কাছে ব্যাগ, কাপড়চোপড়, ওষুধ, প্রসাধন সামগ্রী উদ্ধার করা হয়। তিনি জন্ম নিবন্ধনের জন্য ফরিদপুরের বোয়ালমারী সদর ইউনিয়ন পরিষদেও গিয়েছিলেন, যা কোনোভাবে অপহৃত ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব নয়। তা ছাড়া পুলিশ ও আদালতে রহিমা বেগমের দেওয়া বয়ানেও পার্থক্য রয়েছে। তদন্ত করলে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটিত হবে।

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার মতো খেলা হবে, আপনারা প্রস্তুত থাকেন: ওবায়দুল কাদের

আওয়াজবিডি ডেস্ক
৮ ডিসেম্বর ২০২২, রাত ৮:২৮ সময়
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের —ছবি-সংগৃহীত

আজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে ভার্চ্যুয়ালি যোগ দিয়ে উদ্বোধনী বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ডিসেম্বর মাস। খেলা হবে, খেলা হবে, খেলা হবে। কুমিল্লা খেলবে। সামনে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল। আর্জেন্টিনা খেলবে, ব্রাজিল খেলবে। সবাই প্রস্তুত থাকেন। রাজনীতির মাঠেও খেলা হবে। খেলা হবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে, নাশকতার বিরুদ্ধে, লুটপাটের বিরুদ্ধে, ভোট ডাকাতির বিরুদ্ধে, ভুয়া ভোটারের বিরুদ্ধে, সাম্প্রদায়িকতা ও অগণতান্ত্রিক শক্তির বিরুদ্ধে। কুমিল্লাবাসী, আপনারা তৈরি থাকেন।’

কুমিল্লার লালমাই উপজেলার বাগমারা উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। এতে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় নেতা সুজিত রায় নন্দী, আবদুস সবুর, সংসদ সদস্য নাছিমুল আলম চৌধুরী, আবুল হাসেম খান, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা প্রমুখ।

ইব্রাহিম/আওয়াজবিডি/ইউএস